Image default
স্বাস্থ্য

ভিটামিন ডি ঘাটতিজনিত লক্ষণ : ভিটামিন ডি এর উৎস

ভিটামিন ডি আসলে একটি স্টেরয়েড হরমোন । এটি চর্বিতে দ্রবণীয় যা শরীরের ক্যালসিয়াম , ফসফেট ইত্যাদির মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে । ভিটামিন ডি অস্থির কাঠামো তৈরী ও ঘনত্ব বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে । শরীর সুস্থ ও ফিট রাখতে ভিটামিন ডি এর প্রয়োজনিয়তা অনেক বেশি । ভিটামিন ডি এর প্রধান উৎস হচ্ছে সূর্যের রশ্মি । সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ১টার মধ্যে সূর্যের রশ্মিতে ভিটামিন ডি বেশি থাকে । এছাড়াও বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছে ভিটামিন ডি পাওয়া যায় ।

শরীরে ভিটামিন ডি এর ঘাটতির ফলে নানা রকম শারীরক সমস্যার সৃষ্টি হয় । এজন্য শরীরে ভিটামিন ডি ঘাটতির উপসর্গ গুলো জানা প্রয়োজন ।

ভিটামিন ডি এর ঘাটতির উপসর্গ :

শিশুদের ক্ষেত্রে :
vitamin-d1.jpg
কিছু ভিটামিন ডি যুক্ত খাবার , ছবি-সংগ্রহীত

শিশুদের শরীরে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি হলে তার উপসর্গ তীব্রভাবে পরিলক্ষিত হয় । ভিটামিন ডি এর অভাবে শিশুদের হাড় ঠিকভাবে বৃদ্ধি পায় না অর্থাৎ শিশুদের হাড় নরম ও আকাবাকা হয়ে যায় । ফলে এটা রিকেটস নামক একটি রোগে পরিনত হয় । শিশুদের রিকেটস রোগে পা বেকে যায় এবং মাথার খুলিও বড় হয়ে যেতে পারে । এ রোগে বেশিদিন ভুগলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে শরীরের স্বাভাবিক বৃদ্ধিও ব্যাহত হতে পারে ।

 

প্রাপ্তবয়স্কদের ক্ষেত্রে :

বয়স্কদের শরীরে তীব্রভাবে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি হলে অস্টিওমেলাসিয়া নামক অসুখ দেখা দেয় । যার ফলে পেশির দুর্বলতা , সিড়ি আরোহন করতে কষ্ট অনুভব , মেঝে বা চেয়ার থেকে উঠতে বসতে ভিষন কষ্ট পাওয়া , পায়ের মাংসপেশিসমূহ হাড়ের সাথে জড়িয়ে ধরার মত মনে হওয়া ইত্যাদি লক্ষণ পরিলক্ষিত হয়ে থাকে ।

এছাড়াও ভিটামিন ডি ঘাটতির ফলে সবার শরীরে সাধারণ যে উপসর্গগুলি দেখা যায় সেগুলো হলো :

১ । অসুস্থতা বেড়ে যাওয়া :

ভিটামিন ডি এর অভাবে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমতে থাকে । ফলে বিভিন্ন রকম শরীরিক অসুস্থতা দেখা দিতে থাকে । এটা ভিটামিন ডি ঘাটতির প্রধান লক্ষন ।

২ । হাড় ও পিঠে ব্যাথা :

ভিটামিন ডি শরীরে ক্যালসিয়ামের ভারসাম্য বজায় রাখতে সহায়তা করে । শরীরে ক্যালসিয়ামের ভারসাম্য নষ্ট হলে হাড় ও পিঠে ব্যাথার মতো সমস্যা দেখা দেয় ।

৩ । মাংসপেশিতে ব্যাথা :

ভিটামিন ডি শরীরের মাংসপেশিতে দৃঢ়তা প্রদান করে । তাই ভিটামিন ডি এর অভাবে মাংসপেশিতে ব্যাথা অনুভুত হয় ।

৪ । অল্পতে ক্লান্ত হয়ে পড়া :

শরীরে ভিটামিন ডি এর ঘাটতির ফলে পর্যাপ্ত বিশ্রাম নেয়ার পরও শরীরে ক্লান্তভাব কাটে না ।

vitamin-d2.jpg

 

ভিটামিন ডি এর উৎস : 
  • ভিটামিন ডি এর প্রধান উৎস সূর্যের আলো । সূর্যের কিরণ ত্বক শুষে নেয় এবং দেহে ভিটামিন ডি বৃদ্ধি করে । নিয়মিত সকাল বেলার সূর্যের আলো গ্রহন করলে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি থেকে বেচে থাকা সম্ভব ।
  • বেশ কিছু খাবারে ভিটামিন ডি পাওয়া যায় । যেমন- স্যামন মাছ , মাছের লিভার , মাশরুম , দই , পনির ইত্যাদি ।
  • সূর্যের আলোতে বেড়ে ওঠা হাস-মুরগির ডিমে ভিটামিন ডি পাওয়া যায় । সূর্যের আলোতে বিচরণ করা গবাদি পশুর দুধেও ভিটামিন ডি পাওয়া যায় ।
  • এছাড়া গরু-ছাগলের কলিজা , মাছের কাটা ও মাংসের হাড়েও ভিটামিন ডি পাওয়া যায় ।
আরো পড়ুন

ভিটামিন ‘এ ‘ এর উৎস : কোন কোন খাবারে পাওয়া যায়

ভিটামিন সি এর উৎস । শরীরে প্রতিদিন কতটুকু প্রয়োজন

Related posts

কোলোনোস্কোপি কি , কোলোনোস্কোপি সম্পর্কে জানুন ।

jibondharaa

থাইরয়েড ক্যান্সার কত প্রকার । এর লক্ষণ ও চিকিৎসা ।

jibondharaa

শীতে শিশুর যত্ন ও পরিচর্যা

jibondharaa

Leave a Comment