Image default
পুষ্টি

আমড়ার পুষ্টিগুণ : আমড়া থেকে যে উপকার পাওয়া যায়

আমড়া সহজলভ্য ও পুষ্টিগুণসমৃদ্ধ একটি জনপ্রিয় ফল । এটি কাঁচা ,রান্না , আচার , জেলি সহ বিভিন্ন ভাবে খাওয়া যায় । আপেলের চেয়ে আমড়াতে প্রোটিন , ক্যালসিয়াম ও আয়রনের পরিমান বেশি পাওয়া যায় । একটি আমড়াতে প্রায় তিনটি আপেলের সমান পুষ্টিগুণ থাকে । এটি খুবই কম দামি ও হাতের নাগালে পাওয়া যায় এজন্য সব শ্রেনির মানুষ খেতে পারে । আমড়ায় প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি , আয়রন এবং ক্যালসিয়াম রয়েছে যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী ।

আমড়ার খাওয়ার উপকারীতা গুলো জেনে নেই :

১ । শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে :
amra-1.jpg
আমড়ার ফুল, ছবি – সংগ্রহীত

ভিটামিন সি শরীরের জন্য একটি অত্যাবশ্যকীয় ভিটামিন এবং প্রাকৃতিক অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট । আমড়ায় প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি রয়েছে যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে । বিভিন্ন প্রকার ভাইরাল ইনফেকশনের বিরুদ্ধেও লড়াই করে আমড়া । প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি থাকায় স্কার্ভি রোগ প্রতিরোধ করে আমড়া ।

২ । রক্তস্বল্পতা রোধ করে :

রক্তস্বল্পতার প্রধান কারন শরীরে আয়রনের ঘাটতি ।১০০ গ্রাম আমড়ায় ২.৮ মিলিগ্রাম আয়রন থাকে যা দৈনিক আয়রনের চাহিদার ১৫.৫%-৩৫% পূরন করে । যারা রক্তস্বল্পতায় ভুগছেন তারা নিয়মিত আমড়া খেতে পারেন ।

৩ । হৃদরোগ প্রতিরোধ করে :

রক্তে থাকা ক্ষতিকর কোলেস্ট্রোল হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয় । আমড়ায় থাকা প্রচুর পরিমানে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রক্তের ক্ষতিকর কোলেস্ট্রোলের মাত্রা কমায় । তাই আমড়া খেলে স্ট্রোক ওহৃদরোগের ঝুঁকি কমে ।

৪ । ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দূর করে :
amra-2.jpg
বাড়ন্ত আমড়া, ছবি – সংগ্রহীত

শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পড়লে হাড়ের রোগ , মাংস পেশীতে খিঁচুনি সহ নানা সমস্যা দেখা দিতে থাকে । ক্যালসিয়ামের ভালো একটি উৎস আমড়া । প্রতিদিনের ক্যালসিয়ামের চাহিদা পূরনের জন্য নিয়মিত আমড়া খেতে পারেন । আমড়ায় প্রচুর পরিমানে ক্যালসিয়াম রয়েছে , যা শিশুর দৈহিক গঠনে সহায়তা করে । তাই  শিশুদেরও নিয়মিত আমড়া খাওয়াতে পারেন ।

৫ । সর্দি-কাশি , ইনফ্লুয়েঞ্জার বিরুদ্ধে লড়াই করে :

সিজনাল রোগ গুলোর মধ্যে সর্দি-কাশি , ইনফ্লুয়েঞ্জা অন্যতম , প্রায় প্রত্যেকেই এসব রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন । বিভিন্ন ভাইরাসের আক্রমন থেকে রক্ষা করা ছাড়াও আমড়া সর্দি-কাশি , ইনফ্লুয়েঞ্জা রোগের জীবানুর বিরুদ্ধে লড়াই করে । তাই ঠান্ডাজনিত এসব রোগ থেকে দূরে থাকতে নিয়মিত আমড়া খেতে পারেন ।

৬ । বদহজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি দেয় :
amra-4.jpg
খাওয়ার উপযুক্ত আমড়া, ছবি – সংগ্রহীত

বদহজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য দুটোই আমাদের জন্য কষ্টদায়ক ও অস্বস্থিকর । আমড়ায় রয়েছে বিভিন্ন দ্রবণীয় ফাইবার ও আঁশ যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে এবং হজমশক্তি বৃদ্ধি করে । নিয়মিত আমড়া খেলে বদহজম ,পেট ফাঁপা ও কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পাওয়া যায় ।

৭ । ত্বক সুস্থ ও উজ্জ্বল রাখে :

আমড়ায় উপস্থিত প্রচুর পরিমান ভিটামিন সি ত্বক উজ্জ্বল রাখতে সহায়তা করে । এছাড়া আমড়া ত্বকের ব্রণ কমাতেও কার্যকরী ভূমিকা রাখে । এজন্য ত্বক সুস্থ্য ও উজ্জ্বল রাখতে চাইলে আমড়া খেতে পারেন ।

আমড়া মুখের অরুচি ভাব দূর করে এবং ক্ষুধা বাড়ায় । অসুস্থ ব্যক্তির মুখের স্বাদ ফেরাতে সহায়তা করে । এছাড়া আমড়া রক্ত জমাট বাধার ক্ষমতা বৃদ্ধি করে । নিয়মিত আমড়া খেলে শরীরে ভিটামিন সি এর ঘাটতি থাকে না এবং আমড়া শরীরে আয়রনের অভাব ও পূরন করে । তাই সুস্থ থাকতে প্রতিদিনের খাবার তালিকায় আমড়া রাখতে পারেন ।
আরো পড়ুন

পেয়ারার পুষ্টিগুণ :পেয়ারা কেন খাবেন

নিয়মিত বেদানা খাওয়ার উপকারীতা

 

 

Related posts

শীতের শাক – সবজি : পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা

jibondharaa

নিয়মিত বেদানা খাওয়ার উপকারীতা

jibondharaa

আনারসের পুষ্টিগুণ : উপকারীতা ও অপকারীতা

jibondharaa

Leave a Comment